রিয়ালের বিপক্ষে ম্যানসিটির প্রথম জয়

চলতি চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হওয়ার আগে লস ব্লাঙ্কোসদের বিপক্ষে এ প্রতিযোগিতায় ম্যানচেস্টার সিটির জয় ছিল না একটিও। নিজেদের ইতিহাসে ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে রিয়ালের বিপক্ষে প্রথম জয় তুলে নিলো ম্যানসিটি। তাও রিয়ালের ঘরের মাঠে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। বুধবার(২৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচে রিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ম্যানসিটি। চ্যাম্পিয়নস লিগে দুই দলের আগের চার দেখায় নিজেদের মাঠে দুই ম্যাচে জিতেছিল রিয়াল। সিটির মাঠে দুই ম্যাচ হয়েছিল ড্র।


নিজেদের ইতিহাসে ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে রিয়ালের বিপক্ষে প্রথম জয় তুলে নিলো ম্যানসিটি। তাও রিয়ালের ঘরের মাঠে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে


দুই দল প্রথমার্ধ গোলশূন্য কাটায়। ম্যাচে হওয়া সব গোল হয় দ্বিতীয়ার্ধে। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে স্বাগতিকদের প্রথম এগিয়ে দেয় ইসকো। তবে ব্রাজিলিয়ান গাব্রিয়েল জেসুসের গোলে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ম্যানচেস্টার সিটি। শেষ দিকে স্পট কিক থেকে ম্যানসিটির জয় নিশ্চিত করে কেভিন ডি ব্রুইনা। কোচ জিনেদিন জিদানের বিপক্ষে প্রথমবার মুখোমুখিতে জয় তুলে নিলো পেপ গার্দিওলা।
এ ম্যাচের আগে দুই দলই বলতে গেলে প্রায় ছন্নছাড়া। ম্যানচেস্টার সিটি উয়েফার নিষেধাজ্ঞা নিয়ে খেলতে এসেছে। এছাড়াও টানা দুইবার জেতা প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা এবার হাতছাড়া হওয়ার পথে তাদের। অপরদিকে দারুণ খেলতে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ শেষ দুই ম্যাচে পথ হারিয়েছে। সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে ড্রয়ের পর হার দেখেছে লেভান্তের বিপক্ষে।
এদিন সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে প্রথম সুযোগটি তৈরি করে ম্যানসিটি। ম্যাচের ২১ মিনিটে ডি ব্রুইনার পাস জেসুস গোলমুখে শট করেন। তবে রিয়ালকে এ যাত্রায় রক্ষা করেন গোলরক্ষক কর্তোয়া। ২৯ মিনিটে আক্রমণ করে রিয়ালও। তবে তাতে ছিল না কোনো ধার।
ম্যাচের ৬০ মিনিটে গোল করে সমর্থকদের আনন্দে ভাসায় রিয়াল। ভিনিসিয়াস জুনিয়রের পাস থেকে স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড ইসকো গোল করেন। ম্যাচের ৭৮ মিনিটে খেলায় সমতা ফেরায় ম্যানসিটি। ডি ব্রুইনার ক্রস থেকে হেডে বল জালে জড়ান জেসুস। পাঁচ মিনিট পর ম্যানসিটির পক্ষে জয়সূচক গোল করেন বেলজিয়ান মিডফিল্ডার ডি ব্রুইনা। রিয়াল ডিফেন্ডার কারভালহো সিটির স্টার্লিংকে ডি বক্সে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় অতিথিরা। আর তা থেকে বল জালে জড়াতে কোনো ভুল করেননি ডি ব্রুইনা। প্রথমবারের মতো ইউরোপ সেরার আসরে একই ম্যাচে গোল এবং অ্যাসিস্টের কীর্তি গড়েন ডি ব্রুইনা।
সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রিয়ালের শেষ হয় বাজেভাবে। দলের অধিনায়ক সার্জিও রামোস লালকার্ড দেখেন। বল নিয়ে ছোটা জেসুসকে পেছন থেকে টেনে ধরে লালকার্ড দেখেন রামোস। ফলে ১৭ মার্চ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে হওয়া দ্বিতীয় লিগে পাওয়া যাবে না রিয়াল অধিনায়ককে। রিয়ালের হয়ে এটি রামোসের ২৬তম লালকার্ড।