অস্কার জিতলেন সাকিব!

সাকিব আল হাসান। সাবেক বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। যিনি বর্তমানে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার মধ্যে আছেন। নিষেধাজ্ঞার মধ্যে থাকলেও তার কীর্তি ঠিকই তাকে খুঁজে ফিরছে। এই যেমন আজ বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০) তিনি ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) অস্কার জিতলেন ‘সেরা বোলিং স্পেলের’ জন্য।
২০১৩ সালে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের প্রথম আসরে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলেছিলেন সাকিব। বল হাতে দ্বিতীয় ম্যাচেই রেকর্ড গড়েন তিনি। বার্বাডোস ট্রাইডেন্টের বিপক্ষে ৪ ওভারে মাত্র ৬ রান দিয়ে নেন রেকর্ড ৬ উইকেট। সিপিএলের ইতিহাসে এখনো সেটি সেরা বোলিং স্পেল।
সেদিন জ্যাসন হোল্ডার ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েল বার্বাডোজের জাস্টিন গুলেন, ডাভি জ্যাকবস ও ড্যারেন ব্রাভোকে ফেরান ২৫ রানের মধ্যে। এরপর টানা ছয়টি উইকেট তুলে নেন সাকিব। একে একে তিনি ফেরান রস টেলর (১১), ডোয়াইন ব্রাভো (৫), কেভিন ও’ব্রায়েন (৯), নিকোলাস পুরান (০), কেভিন কুপার (০) ও স্যামুয়েল বার্দিকে (১)। কী ভয়ঙ্কর স্পেলই না করেছিলেন সেদিন। তার বোলিং তোপে বার্বাডোজ মাত্র ৫২ রানে অলআউট হয়েছিল। ম্যাচসেরা হয়েছিলেন সাকিব।

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০) তিনি ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) অস্কার জিতলেন ‘সেরা বোলিং স্পেলের’ জন্য


বৃহস্পতিবার সিপিএল অস্কারে সাকিবের সেই জাদুকরী স্পেলের জন্য তাকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ভেরিফায়েড পেজে পুরস্কার ঘোষণার পর সাকিবের সেই বোলিং স্পেলের ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ তাদের ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা পারফরমারদের পুরস্কৃত করছে। তারা সেটার নাম দিয়েছে ‘সিপিএল অস্কার’।
সাকিব নিষিদ্ধ হওয়ার পেছনে ষড়যন্ত্রের গন্ধ
ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব গোপন করে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এই শাস্তির পরে এর পক্ষে-বিপক্ষে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। সাবেক ক্রিকেটার সিদ্দিক চৌধুরী বাবলু কথা বলেছেন এসবিএস বাংলার সঙ্গে।
অস্ট্রেলিয়ার লেভেল-২ কোয়ালিফায়েড ক্রিকেট কোচ সিদ্দিক চৌধুরী বাবলু একসময়ে ঢাকার প্রিমিয়ার লিগে বাংলাদেশ বিমান দলে ক্রিকেট খেলতেন। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হওয়ায় তিনি মর্মাহত। এসবিএস বাংলাকে তিনি বলেন,“খুবই স্যাড ফর বাংলাদেশ ক্রিকেট। আমি খুব মর্মাহত হয়েছি।”
এই ঘটনা তিনি মেনে নিতে পারছেন না। তিনি বলেন, “আমার কাছে কেন যেন মনে হচ্ছে, এটা কন্সপিরেসি।”
সাকিবের মতো একজন ‘কুল হেডেড’ ছেলে কেন বিষয়টি আইসিসিকে জানালো না, তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন বাবলু চৌধুরী, “সাকিবের যে কন্ডিশনটা ছিল যে, ওকে যে বুকিরা যোগাযোগ করছে, এটা তো গত তিন বছর ধরে হয়ে আসছে।”
হঠাৎ করে এই সময়টাতেই কেন এ বিষয়টি সামনে আনা হলো তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বাবলু চৌধুরী, “এই মুহূর্তে কেন? যখন প্লেয়াররা তাদের ডিমান্ড পেশ করছে, এই টাইমে কেন?” প্রশ্ন করেন তিনি।